নগদ একাউন্ট দেখার নিয়ম এবং কল সেন্টার নাম্বার

নগদ একাউন্ট দেখতে আপনার মোবাইল থেকে ইউএসএসডি কোড অথবা নগদ অ্যাপ ব্যবহার করা যেতে পারে।

বাংলাদেশের মোবাইল ব্যাংকিং খাতে নগদ এক অনন্য নাম এবং বাংলাদেশ ডাক বিভাগের সহায়তায় নগদ হয়ে উঠেছে দেশের মানুষের আস্থার প্রতীক। সেই সাথে নগদ একাউন্টের মুনাফা সিস্টেম অনেকের জন্য একটি বিশেষ সুবিধা হয়েছে।

এই পোস্টে আমি নগদ অ্যাপ দেখার নিয়ম, একাউন্ট খোলার সিস্টেম, নগদ একাউন্ট ব্যালেন্স দেখার নিয়ম, নগদ একাউন্টের সুবিধা সমূহ নিয়ে আলোচনা করব।

যদি আপনার নগদ নিয়ে কোনো ধরনের প্রশ্ন কিংবা জানায় ঘাটতি থাকে তবে তা এই পুরো পোস্ট পড়ে আপনি পরিষ্কার ধারণা নিয়ে নিতে পারবেন।

নগদ কী?

নগদ হলো বাংলাদেশ ডাক বিভাগের একটি প্রতিষ্ঠান যা মোবাইল ব্যাংকিং নিয়ে কাজ করছে।

বাংলাদেশ ডাক বিভাগ বহু আগে থেকে অল্প খরচে টাকা লেনদেন ওর সুবিধা দিয়ে থাকছে। সেই সুবিধা পেতে এতদিন ডাকের গ্রাহকদের তাদের নিকটস্থ ডাকঘর যেতে হতো।

ডাক বিভাগে টাকা লেনদেনের সেই প্রক্রিয়াকে আরো সহজতর করতে ডাক বিভাগের উদ্যগে ১১ নভেম্বর ২০১৮ সালে মাসরাফি বিন মর্তুজাকে ব্রান্ড এম্বাসাডর করে নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা চালু করে।

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সেবায় যেকেউ নিজস্ব মোবাইল থেকে দেশের যেকোনো প্রান্তে টাকা আদান-প্রদান, মোবাইল রিচার্জ, বিল পেমেন্ট করতে পারবেন। তাও দেশের সর্বনিম্ন ক্যাশ আউট রেট মাত্র ৯.৯৯ টাকা প্রতি ১ হাজারে।

নগদ একাউন্ট দেখার নিয়ম

নগদ একাউন্ট দেখার নিয়ম হলো আপনার মোবাইল থেকে *১৬৭# ডায়াল করুন। অ্যাপ এর মাধ্যমে নগদ একাউন্ট দেখার জন্য প্লেস্টোর থেকে Nagad App ইন্সটল করে নিতে হবে।

গুগল প্লেস্টোর থেকে নগদ অ্যাপ ইন্সটল করার পর নগদ নাম্বার দিয়ে লগিন করতে হবে। একবার নগদ অ্যাপ এ সঠিকভাবে লগিন সম্পন্ন হলে নগদের সকল সুযোগ সুবিধা এক অ্যাপ থেকে আপনি ব্যবহার করতে পারবেন।

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সেবার এর বিভিন্ন সুবিধা রয়েছে। যার কারনে অন্য যেকোনো মোবাইল ব্যাংকিং সেবা থেকে নগদ এগিয়ে। প্রতি ১ হাজার টাকা নগদ থেকে উত্তোলনের জন্য ক্যাশ আউট চার্জ হলো মাত্র ৯ টাকা ৯৯ পয়সা, সেখানে বিকাশ ক্যাশ আউট চার্জ ১৪ টাকা ৯০ পয়সা

একনজরে নগদের সকল সুযোগ সুবিধাঃ-

ফ্রি সেন্ড মানিঃ সেন্ড মানি হল এক নগদ একাউন্ট থেকে অন্য নগদ একাউন্টে টাকা লেনদেন করা। অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিং সেবায় সেন্ড মানি করতে আলাদা খরচ দিতে হলেও নগদে সেন্ড মানি একদম ফ্রি।

তাই ব্যক্তিগত নগদ নাম্বার থেকে অন্য নগদ নাম্বারে যত খুশি তত টাকা আদান-প্রদান করা যাবে কোনো এক্সট্রা খরচ ছাড়া।

ক্যাশ আউট খরচঃ প্রতি হাজারে নগদ ক্যাশ আউট চার্জ মাত্র ৯ টাকা ৯৯ পয়সা।

ক্যাশ আউট খরচের দিক থেকে নগদ অন্য সকল মোবাইল ব্যাংকিং সেবা থেকে অনেক উন্নত এবং গ্রাহক বান্ধব। এই হিসাবে কেউ যদি ২৫ হাজার টাকা ক্যাশ আউট করে তবে তার খরচ হবে (২৫*৯.৯৯)= ২৪৯ টাকা ৭৫ পয়সা(প্রায়)

ক্যাশব্যাক অফারঃ নগদ একাউন্ট থেকে নিজের নাম্বারে ২০ টাকা মোবাইল রিচার্জ করলে সাথে সাথে পেয়ে যাবেন ২০ টাকা ক্যাশব্যাক।

এরকম আরো ক্যাশব্যাক অফার নগদ বিভিন্ন উপলক্ষে দিয়ে থাকছে। যেমনঃ ২০২১ সালের ২৬ মার্চ বাংলাদেশের ৫০ তম স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে নগদ একাউন্ট থেকে ২৬ টাকা মোবাইল রিচার্জ করার সাথে সাথে ২৬ টাকা ক্যাশব্যাক দিয়েছে।

এরকম বিভিন্ন উপলক্ষ কেন্দ্র করে বা বিভিন্ন সময় গ্রাহক আকৃষ্ট করতে নগদ অনেক লোভনীয় ক্যাশব্যাক অফার দিয়ে থাকে।

সরকারি – বেসরকারি বিল প্রদানঃ নগদ একাউন্ট থেকে ঘরে বসে বিদ্যুৎ বিল, পানির বিল, ইন্টারনেট বিল, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বিল, সিলেট সিটি কর্পোরেশন বিল, ক্রেডিট কার্ড বিল সহ বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের বিল মূহুর্তে প্রদান সম্ভব। এবং আসল কথা হলো নগদ থেকে পে বিল একদম ফ্রি!

ব্রান্ড কোলাবোরেশানঃ ব্রান্ড কোলাবোরেশান এর অর্থ হলো একটি কোম্পানি অন্য যেকোনো কোম্পানির সেবা কিংবা পন্যের প্রচার করবে। বিনিময়ে সেই কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠান কোনো টাকা নিবে না বরং প্রচারকৃত কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠান সেই প্রতিষ্ঠানের প্রচার কিংবা তাদের পন্যে উক্ত প্রতিষ্ঠানের কথা উল্লেখ করে দিবে।

একটি উদাহরণ দিলে ব্যপারটি আরো সহজ হয়ে যাবে, বাংলাদেশের ইলেকট্রনিকস কোম্পানি হলো Walton এখন ওয়ালটন কোম্পানির যেকোনো পন্য ক্রয় করে নগদে বিল পে করলে নগদ গ্রাহক পাবেন ১০% ক্যাশব্যাক। এদিকে নগদ ওয়ালটন এর প্রচার করল।

একইভাবে ওয়ালটন কোম্পানি বলল আমাদের প্রোডাক্ট কিনে নগদে পেমেন্ট করুন আপনি ১০% ছাড় পাবেন। এভাবে দুই পক্ষ দুই পক্ষের প্রোমোশন করছে। এতে করে নগদ এবং অন্য ব্রান্ডের পাশাপাশি নগদ গ্রাহকেরা পাচ্ছেন আলাদা সুবিধা।

প্রোমোশনাল অফারঃ প্রমোশনাল অফার হলো সীমিত সময়ের জন্য বিভিন্ন সেবার উপর বিশেষ পরিমাণ ছাড়। এতে করে নগদের সাময়িক ক্ষতি কিংবা লাভ না হলেও সামগ্রিক ভাবে লাভ হয়ে থাকে।

যেমনঃ যদি কোনো গ্রাহক তাদের প্রমোশনাল অফারে সাড়া দিয়ে কোনো প্রডাক্ট পারচেজ করে তবে গ্রাহক সেই প্রোডাক্টে অনেক ছাড় পায় এবং নগদ নতুন একজন গ্রাহক পায়।

এভাবে প্রোমোশনাল অফারের মাধ্যমে গ্রাহকদের সুবিধা প্রদান করা হয়।

নগদ একাউন্ট খোলার নিয়ম

নগদ একাউন্ট খোলা একদম সহজ ব্যপার। ঘরে বসেই এই কাজ করা যায়। অথবা আপনি যদি নিজে নিজে করতে না পারেন তবে আপনার এলাকায় থাকা নগদ এজেন্টের কাছে গেলে ২ মিনিটে নগদ একাউন্ট খোলে দিবে।

এজেন্ট থেকে নগদ একাউন্ট খোলার নিয়মঃ

  • জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি এবং ছবি নিয়ে নগদ এজেন্টের কাছে গেলে একাউন্ট খোলা যাবে। এতে করে আপনার কোনো কাজ করতে হবে না। শুধু আপনার একাউন্টের জন্য একটি পিন সেট করবেন এবং সাক্ষর দিবেন। এতেই আপনার নগদ একাউন্ট খোলা হয়ে যাবে।

ঘরে বসে নগদ একাউন্ট খোলার নিয়মঃ

  • ঘরে বসে নগদ একাউন্ট খোলতে আপনার স্মার্ট ফোনে গুগল প্লেস্টোর থেকে Nagad অ্যাপ ইন্সটল করুন।
  • এবার অ্যাপ এ প্রবেশ করে সাইন-আপ এ ক্লিক করে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রের দুই পাশের ছবি তুলুন।
  • আপনার একটি সেলফি তুলতে হবে।
  • সেলফি এবং জাতীয় পরিচয় পত্রের তথ্য মিলে গেলে আপনাকে সাক্ষর প্রদান করতে হবে।
  • এবার আপনার নগদ একাউন্ট এর জন্য ৪ সংখ্যার একটি পিন সিলেক্ট যা প্রতিবার নগদ একাউন্ট এ লগিন এবং লেনদেন এর জন্য দরকার হবে।

এসকল কাজ সম্পূর্ণ হলে 1 থেকে 2 মিনিটের মধ্যে আপনার নগদ একাউন্ট সচল হবে এবং যেকোনো প্রকার লেনদেন করতে পারবেন।

নগদ কল সেন্টার নাম্বার

নগদ কল সেন্টার নাম্বার হলো ১৬১৬৭ এবং ০৯৬০৯৬১৬১৬৭ 

নগদ সম্বন্ধে যেকোনো জিজ্ঞাসা, অভিযোগ, তথ্য জানতে এই নগদ কল সেন্টার নাম্বারে ফোন দিয়ে কথা বলতে পারবেন।

এছাড়া আপনার এলাকায় নগদ সার্ভিস সেন্টার কোথায় তা জানতে নগদ অ্যাপ এ কাস্টমার কেয়ার অপশনে দেখুন।

নগদ সার্ভিস সেন্টার মূলত আপনার এলাকার প্রধান পোস্ট অফিসে। জেলা কিংবা উপজেলার কেন্দ্রীয় ডাকঘর নগদের সার্ভিস সেন্টার হিসাবে থাকে।

যেসকল জেলা এবং উপজেলায় নগদ সার্ভিস সেন্টার রয়েছেঃ

  1. পঞ্চগড়
  2. ফরিদপুর
  3. উত্তরা
  4. জিগাতলা
  5. বগুড়া
  6. টঙ্গী
  7. গাজীপুর
  8. নোয়াখালী
  9. চান্দপুর
  10. মোহাম্মদপুর
  11. মিরপুর
  12. সিলেট
  13. রাজশাহী
  14. কুমিল্লা
  15. ব্রাহ্মণবাড়িয়া
  16. ময়মনসিংহ
  17. রংপুর
  18. খুলনা
  19. বাইতুল মাকারাম মসজিদ
  20. চট্টগ্রাম
  21. নারায়ণগঞ্জ

উক্ত এলাকায় প্রধান কাস্টমার সেন্টার রয়েছে, সেই সাথে প্রতিটি জেলা শহর, উপজেলা-থানা, ইউনিয়ন পরিষদে নগদের নগদ সেবা পয়েন্ট রয়েছে। এ সকল নগদ সেবা পয়েন্টে নগদ একাউন্ট এর যে কোন সমস্যা সমাধান করিয়ে নিতে পারবেন।

নগদ একাউন্ট রেফার অফার ২০২১

নগদ একাউন্ট রেফার করে আয় করতে পারবেন হাজার হাজার টাকা।

নগদ সেবার পরিক্রমা এবং গ্রাহক সংখ্যা বৃদ্ধি করতে নগদ রেফার অফার ২০২১ চালু করে। এই অফারে সকল নগদ ব্যবহারকারী অংশগ্রহণ করতে পারবেন। এই অফারের নিয়ম হলো আপনি যত জনকে রেফারে যুক্ত করতে পারবেন তত জনের জন্য ৫০ টাকা করে আপনার নগদ ব্যালেন্স এ যুক্ত হবে। যা আপনি ক্যাশ আউট, মোবাইল রিচার্জ, সেন্ড মানি করতে পারবেন।

এই নিয়ম অনুসারে আপনি যদি ৫০ জনকে নগদে রেফার করতে পারেন তবে (৫০*৫০)= ২৫০০ টাকা পাবেন। এভাবে খুব সহজে রেফার করে আপনি হাজার হাজার টাকা আয় করতে পারবেন

 

এই পুরো পোস্টে আমি নগদের আদ্যোপান্ত ব্যখ্যা করার চেষ্টা করেছি কিভাবে নগদ একাউন্ট দেখবেন থেকে শুরু করে নগদ রেফার অফার ২০২১ পর্যন্ত। পুরো পোস্ট পড়লে নগদ নিয়ে আপনার কোনো দ্বিধা থাকবে না।